Untitled Document
udriti

                                    এসো লড়ি সমস্ত মানুষের সুখের জন্য (চার্লি চ্যাপলিনের “দ্যা গ্রেট ডিক্টেটর” সিনেমার নির্বাচিত অংশের বাংলা ভাষান্তর)

আমি দুঃখিত। আমি একজন সম্রাট হতে চাইনা, সেটি হওয়া আমার কাজও নয়। আমি কাউকে শাসন করতে চাইনা, চাইনা কাউকে জয় করতে। যদি সম্ভব হয় আমি সবাইকে সহযোগিতা করতে চাই, তা সে ইহুদি, সাদা, কিংবা কালো যেই হোক না কেন। মানুষ আসলে এমনই। আমরা বাঁচি একে অন্যের সুখের জন্য, দুঃখের জন্য নয়। আমরা কাউকে ঘৃণা অথবা অপমান করতে চাই না। এই পৃথিবীতে সবার বাঁচার জন্যই জায়গা আছে। ধরিত্রী মাতা ধনে পূর্ন, সবার জন্যই তার সমান চোখ। আমাদের বাঁচার পথ মুক্ত আর সুন্দর। কিন্তু আমরা সে পথ হারিয়ে ফেলেছি। লোভ আমাদের আত্মাকে বিষিয়ে দিয়েছে আর পৃথিবীকে ঘৃণায় ভরিয়ে তুলেছে। সারা পৃথিবী আজ দুর্দশা আর রক্তে ভরে উঠেছে। আমরা গতিময় হয়েছি কিন্তু আমাদের সত্তাকে অবচয় করছি। যন্ত্র আমাদেরকে পদে পদে শৃঙ্খলিত করে রেখেছে, একপাও মুক্ত হতে বাঁধা হয়ে দাঁড়াচ্ছে। আমাদের জ্ঞান বিদ্বেষ পুর্ন। আমাদের চতুরতা কঠোর এবং নিষ্ঠুর। আমরা অনেক কিছু চিন্তা করি কিন্তু অনুভূতির ক্ষেত্রে আমরা শূন্য। যন্ত্র হওয়া থেকে এখন আমাদের মানবিক হওয়া বেশি প্রয়োজন। চতুরতা থেকে বেশি প্রয়োজন দয়ালু ও সরল হওয়া। শান্তি গুণ ছাড়া আমরা হিংস্র হয়ে উঠবো। আর এভাবেই আমরা সবাই একদিন বিলীন হয়ে যাবো। উড়োজাহাজ আর রেডিওর আবিষ্কার আমাদেরকে অনেক কাছাকাছি নিয়ে এসেছে। এগুলো আবিষ্কারের খুব স্বাভাবিক বিষয়টা হলো ভাল ও সমৃদ্ধ মানুষ তৈরি, পৃথিবী জুড়ে ভ্রাতৃত্বের বন্ধন তৈরি এবং মানব আত্মার ঐক্য। এমনকি আমার কন্ঠ এখন পৃথিবীর কোটি মানুষের কাছে পৌঁছে যাচ্ছে। কোটি নারী, পুরুষ, শিশুর কানে পৌঁছে যাচ্ছে। ব্যবস্থার শিকার হয়ে মানুষ নিপীড়িত হচ্ছে, বন্দী হচ্ছে। যারা আমার কথা শুনতে পাচ্ছো তাদেরকে আমি বলবো ভয় করোনা। এই লোভ, এই তিক্ততা ( যার ফলে আমরা মানব প্রগতির কথা ভাবতে ভয় পায়) দিনের একদিন অবসান হবে। মানুষের ঘৃণারও একদিন অবসান হবে, স্বৈরশাসকেরাও মরবে। মানুষের কাছ থেকে যে ক্ষমতা কেড়ে নেয়া হয়েছে সে ক্ষমতা মানুষ একদিন ফিরে পাবে। মানুষ যতদিন এভাবে মরবে ততদিন মুক্তি আমাদের অধরা।

সৈন্যরা, তোমরা তোমাদের আত্মাকে বর্বরতার কাছে সপে দিয়োনা। যারা তোমাদেরকে অপমানিত করে, দাস বানায়, নিয়মবদ্ধ করে রাখে, তোমাদেরকে বলে দেয় কোনটা করবে, কোনটা ভাববে, কোন অনুভূতি তোমাদের থাকবে? যারা তোমাদের চালায়, নিয়ন্ত্রণ করে আর তোমাদের সাথে গরু ছাগলের মতো ব্যবহার করে। তোমরা তোমাদের সত্তাকে অস্বাভাবিক করো না, তোমরা যন্ত্র মানুষ হয়ো না, হয়ো না যন্ত্র মন- মগজের। তোমরাতো আর যন্ত্র নও, গরু ছাগল নও। তোমরা মানুষ। তোমাদের মাঝে ভালবাসার মানবীয় গুণ আছে। তোমরা ঘৃণা করতে পারো না। তোমরা মানুষকে ভালবাসতে পারো। তোমরা স্বভাবিক মানুষ হতে পারো। সৈন্যরা দাসত্বর জন্য লড়ো না, লড়ো মুক্তির জন্য। সন্ত লুথ ১৭ অধ্যায়ে লিখছেন, “ঈশ্বরের রাজ্য মানুষের মধ্যে। একজন মানুষ কিংবা কিছু মানুষের মধ্যে নয় বরং সমস্ত মানুষের মধ্যে।” তোমাদের মধ্যে। জনগণ তোমাদের হাতেই আছে ক্ষমতা। যন্ত্র বানানোর কিংবা সুখ সমৃদ্ধি সৃষ্টি করার ক্ষমতা। জনগণ তোমরা এই অনবদ্য ক্ষমতা দিয়ে পৃথিবীকে মুক্ত ও সুন্দর করে তুলতে পারো। জীবনকে করে তুলতে পারো অসাধারণ বিষ্ময়কর। এসো গণতন্ত্রের নামে সে ক্ষমতা আমরা দখল করি। আমরা সবাইকে একত্রিত করি। এসো আমরা নতুন একটা পৃথিবীর জন্য লড়াই করি। লড়াই করি সমৃদ্ধ একটা পৃথিবীর জন্য। যে পৃথিবী মানুষকে তার নিজের কাজটি করতে দেবে, মানুষকে একটা ভবিষ্যৎ দেবে, দেবে নিরাপত্তা। এসব প্রতিশ্রুতি দিয়ে ওরা ক্ষমতায় এসেছিল। কিন্তু তারা মিথ্যা বলেছিল। তারা তাদের প্রতিশ্রুতি রাখেনি। তারা মানুষকে দাসে পরিণত করেছে। এখন এসো আমরা আমাদের প্রতিশ্রুতি পূর্ন করার জন্য লড়ি। এসা পৃথিবীকে মুক্ত করার জন্য লড়ি। জাতিগত সীমানাকে উপড়ে ফেলার জন্য, লোভ ছুড়ে ফেলার জন্য, ঘৃণা আর অসহিষ্ণুতা থেকে মুক্ত হবার জন্য আমরা লড়ি। যুক্তির পৃথিবী গড়ার জন্য। বিজ্ঞান আর প্রগতির পৃথিবী তৈরির জন্য। লড়ি সমস্ত মানুষের সুখের জন্য। সৈন্যরা, এসো গণতন্ত্রের জন্য সবাইকে একত্রিত করি। 
Untitled Document
 
Total Visitor : 709188
সাপলুডু মূলপাতা | মতামত Contact : shapludu@gmail.com
Copyright © Life Bangladesh Developed and Maintained By : Life Yard