Untitled Document
কার্তিক সংখ্যা ১৪১৭
মূলপাতা শিরোনাম বটতলা পঞ্জিকা প্রদর্শনী
করিডোরে ঘন্টা ধ্বনি
- মাসুদুর রহমান


ঐ যে মানুষটাকে দেখছো হাই তুলছে
তাকে ঘুমিয়ে পড়তে বলো অথবা তাড়া করো
প্রাণ ভয়ে দৌঁড়ে পালাক সে এক্ষুণি
আমি কেবল অতন্দ্র মানুষের তালিকা লিখছি।

ঐ পতিতা মেয়েটিকে জিজ্ঞেস করো
বিশ্ববিদ্যালয়ে কিরকম শিক্ষা চালু থাকা প্রয়োজন
আর ঐ বদ্ধ উন্মাদ মাতালটিকে জিজ্ঞেস করো
ক্লাসে ছাত্রদের সে বিশেষ কি শিক্ষা দিতে চায়।

 যে মানুষটা দেশলাই ঘষে
সিগারেট জ্বালছে তাকে জিজ্ঞেস করো
সে কি কখনো মশাল জ্বেলেছে অথবা
আগুনে ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেছে কিনা?

মাংসের দোকানিকে জিজ্ঞেস করো
সে নিজে কখনো খুনির খপ্পরে পড়েছিল কিনা
অথবা ক্রেতার ব্যাগে ভুলবশত নিজের আঙ্গুল
ওজন করে দিয়েছিল কি কোনোদিন?

আর সেই সুদখোর উন্মাদটিকে জিজ্ঞেস করো
দারিদ্র্য বিমোচনের পর তার ব্যবসা কি করে চালু থাকবে।
ঐ শিক্ষক মহাশয়টিকে জিজ্ঞেস করো
আলোকিত ছাত্ররা এনজিওর অগ্রগতি নিশ্চিত করতে পেরেছে কিনা?

আর ঐ গর্ভবতী পাগলী মেয়েটি কি তার
পেটের সন্তানকে মেরে ফেলতে চায়
এক্ষুণি নিশ্চিত হও এবং মহামান্য
বিচারককে জিজ্ঞেস করো সে স্বাধীনতা তার আছে কি নেই।

আপাতত এতটুকুর মীমাংসা হলে
কবিতার ভূমিকা প্রসঙ্গে আরো বিস্তারিত আলোচনা হতে পারে।
হতে পারে মৃত্যুদণ্ডে দণ্ডিত কবিদের
বেকসুর খালাস এবং অগ্রন্থিত কবিতার
সমগ্র প্রকাশ। আর ঐ পাগলী মেয়েটি
রাষ্ট্রীয় তত্ত্বাবধানে হাসপাতালে জন্ম দিতে পারে
তার সন্তান; একজন শুভ্র সেবিকার
হাতে তোয়ালে জড়ানো
ভবিষ্যৎ কবির চিৎকার করিডোরে
ঘন্টাধ্বনির মতো প্রতিধ্বনিত হতে পারে
কবিতারা যেভাবে জন্ম নেয়...।  



Untitled Document
Total Visitor : 708723
সাপলুডু মূলপাতা | মতামত Contact : shapludu@gmail.com
Copyright © Life Bangladesh Developed and Maintained By :