Untitled Document
আষাঢ় সংখ্যা ১৪১৮
মূলপাতা শিরোনাম বটতলা পঞ্জিকা প্রদর্শনী
‘বাংলাদেশে কোনো আদিবাসী নেই!’
- সিমন বাস্কে


 

নিউ ইয়র্কে জাতিসংঘের আদিবাসী বিষয়ক স্থায়ী ফোরামের (ইউএনএফপিআইআই)  দশম আধিবেশনে  সম্প্রতি  বাংলাদেশ সরকারের একজন প্রতিনিধি দাবি করেছেন যে, বাংলাদেশে  কোনো আদিবাসী নেই।
অনলাইন দৈনিক বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম-এর খবরে  বলা হয়:
এ সেশনে জাতিসংঘের বাংলাদেশ মিশনের প্রথম সচিব ইকবাল আহমেদ বলেন, বাংলাদেশে কোনো আদিবাসী নেই।
শান্তিচুক্তি নিয়ে আলোচনার কোনো অধিকার ফোরামের নেই।
তিনিবলেন, ফোরামের সদস্যরা উপজাতিবা ক্ষুদ্র জাতিস্বত্ত্বাশব্দগুলোরজায়গায় আদিবাসীশব্দটি ব্যবহার করতে চাইছেন। কিন্তু বাস্তবতা হলোবাংলাদেশে কোনো আদিবাসী নেই।
ইকবাল আহমেদ জানান, সরকার এই প্রথমবারের মতো ক্ষুদ্র জাতিস্বত্ত্বার জনগণের সাংবিধানিক স্বীকৃতির বিষয়টি সক্রিয়ভাবে বিবেচনা করছে।

এ পরিস্থিতিতে আদিবাসী চিন্তাবিদরা এ বিষয় নিয়ে আরও আলাপ-আলোচনা করে পরবর্তী কর্মপন্থা নির্ধারণ করবেন বলে আমরা আশা করব। গত কয়েক দিনের  ঘটনা বিশ্লেষণ করলে বোঝা যাবে, সরকারের একটি শক্তিশালী আংশ ‘আদিবাসী’  অভিধাটির বিরুদ্ধে সোচ্চার।
তাঁদের যুক্তি হচ্ছে, আদিবাসীদের আগে বাঙালিরাই এই দেশে বসতি স্থাপন করেছে। তাই তারাই প্রকৃত আদিবাসী। আর আদিবাসীরা বিভিন্ন দেশ থেকে এ দেশে এসে বসতি গড়েছে।
অন্যদিকে, আমরা যারা নিজেদের আদিবাসী বলে দাবি করছি, তাদের সোজা যুক্তি হচ্ছে– আদিকাল থেকে আমাদের নিজস্ব ভাষা,  সংস্কৃতি, কৃষ্টি, আচার-আচরণ একই,  এর কোনো পরিবর্তন হয়নি।  আমরা এই দেশের ভূমিজ সন্তান। আমাদের পূর্ব-পুরুষরা কারো জায়গায় বা অন্যকারো দ্বারা বসতি স্থাপন করেনি। তারা এই দেশের বন-জঙ্গল পরিষ্কার করে নিজেরা চাষের উপযোগী করে ওই অঞ্চলে প্রথম বসতি গড়েছে। দেশ বিভাগের সীমানা নির্ধারণ করার আগেই তারা বংশ-পরম্পরায় সে সব এলাকায় বসবাস করছে।
আবার বিভিন্ন মহলের কথায় মনে হয়, আমরা এই দেশে বিশেষ কোনো জাতির আশ্রয় প্রাপ্ত। যেনো কোনো এক সময় বড় বিপদকালে আমরা এ দেশে আশ্রয় নিয়েছি ( যেমন, স্বাধীনতার যুদ্ধের  সময় বাংলাদেশীরা ভারতে শরণার্থী হিসেবে আশ্রয় নিয়েছিলো)। তাই নাকি আমরা ‘উপজাতি’। নিজেদের ভাষা-সংস্কৃতি থাকা সত্ত্বেও তারা ‘জাতি’, আর আমরা ‘উপজাতি’! তা না হলে  ‘উপজাতি’রই বা সংজ্ঞা কী?
আমরা চাই, আচিরেই এই অহেতুক বিতর্কের অবসান হবে। আদিবাসী হিসেবে সাংবিধানিক স্বীকৃতি দিয়ে আমাদের মৌলিক মানবিক অধিকার প্রতিষ্ঠার পথ সুগম করা হবে।

আরো পড়ুন: জাতিসংঘ মিশনে মানবাধিকার লঙ্ঘনকারী সেনা নয়’ 

ছবি: আদিবাসী জীবন, সংগৃহিত, আন্তর্জাল।
     
Untitled Document

কড়াইশুঁটির বিস্ময়
Total Visitor: 708397
সাপলুডু মূলপাতা | মতামত Contact : shapludu@gmail.com
Copyright © Life Bangladesh Developed and Maintained By :