Untitled Document
শ্রাবণ সংখ্যা ১৪১৮
মূলপাতা শিরোনাম বটতলা পঞ্জিকা প্রদর্শনী
মনোভঙ্গির সরলতা, ঘুড়ি ও বৃক্ষের আকুতি
- বিপ্লব বিপ্রদাস



অখন্ড আলোর কাছে আমরা হারাই পথ। কোন পথে গেছে সে, শিল্পকলা! কোন পথে মনো বেদনা বিস্তর! কোন পথে বর্ণ সম্ভাষণ! সমস্ত দ্বিধার কথা, স্মৃতিচারন- স্বপ্নকথা ফুটে আসে তার চিত্রে, চিত্রনে। মহিউদ্দিন আহমেদ মহিমের চিত্রভাষা অপরিচিত নয় আমাদের। কেননা এই ধারায় বিস্তর আঁকিত হয়েছে পূর্বাপর শিল্পীর, শিলপীদলের ক্যানভাসে। যেটুকু নতুন ঠেকে তা মনোভঙ্গির সরলতা, গ্রামীন নির্জনতা আর অতিশয় উজ্জল রঙ। প্রকরনে টেক্সার ও সমতল ভুমির আরোপ স্বাভাবিক ও প্রয়োজনীয় উপলব্ধ হয়।

মহিম দ্বিধাগ্রস্থ পথিকের মতো নয়। ভিতরে পোষণ করে শৈশব। স্বপ্নাতুর সে। ঘুড়িদের মুক্তি তাই আকাশেই। ক্যানভাসে বাতাসও আছে বিস্তর। আর এটুকু দরকার সময়ের অস্থিরতার কালে। কেননা যাপিত জীবনে বোধের দুর্ভীক্ষ প্রকট। তার ছাপ সমকালের অন্যপর শিল্পী এড়াতে পারেনা। মহিমের কাজগুলো বন্য শিল্পীদের (ফব ইজম) কৃত কর্মের সাথে সায়ুজ্য।
বস্তুত সে আঁকে কাঁচা রঙে, মোটা তুলিতে। রঙের প্রকোপে ধরা পড়ে যে মেজাজ, তাকে রুদ্র বলা যেতে পারে অনায়াসে।

মুহুর্তের আবেগ স্থীর হয়ে গেছে প্রতি শিল্পকর্মে। শিল্পীর বাসনায় এইটুকু থাকে চাওয়া। সময় আর স্থান,টাইম এন্ড স্পেস। মহিমের  কর্মপ্রকৃয়ায় ধরা আছে ক্ষিপ্রতা, উত্তল ও অবতল, চড়াই ও উৎরাই। লিনিয়ার গতি আছে সামান্য, তার চেয়ে আছে রেখার বিলীন অভিপ্রায়।

শিল্পী নির্দিষ্ট করে দেখায়নি কিছু। আভাষ টুকু আছে। যদি তারে বলি আধা বিমুর্ত, ভুল হয়ে যাবে। বিমুর্তের কাছেই তার পরিনতি। যেহেতু সে আঁকে স্মৃতি, অতীত, স্বপ্ন ও ফ্যান্টাসী, বড় বড় ক্যানভাস মানানসই তাই। দৃক গ্যালারীতে ’ইমপ্রেশন অব সারাউন্ডিংস’ শিরোনামেই নিহিত হয়ে আছে প্রতিবেশ ও পরিজন। পরিব্যপ্ত চারপাশ তার। ‘হলুদ পাখি’, ‘ঘুড়ি’, ‘বৃক্ষের আকুতি’, ‘গৃহের আভাস’ বিষয়ে পুরোটুকু বাঙালি। এই সকল সনাক্ত করতে পেরে ভালোলাগে আমাদের। পরিচয়ে গ্লোবাল সমাজে বিশিষ্ট হয়ে উঠতে পারি তাতে। চিহ্নগুলো লোপ পেলে শিকড় বিচ্ছিন্ন হবো। আমাদের প্রকৃতি রঙ ধরে বেশি। মাদল আর বাঁশি এই মাটির আত্মার আকুতি। মহিমের প্রদর্শনীাট আমাদের আচ্ছন্ন করেছে, বাঙালি সুর আরোপের জন্যই।

মহিমের এটা প্রথম একক। বহুদুর যেতে হবে তাকে। তার ক্যানভাসে এখন সংযোজনের চেয়ে বিয়োজনের প্রয়োজন বেশি।  রঙ কে রঙিন দেখতে হলে রঙহীনতারও প্রয়োজন আছে। আরো পরিশিলিত দৃষ্টিভঙ্গি প্রয়োজন। আবেগের তরলতা কমে গেলে ঋদ্ধ হবে তার ক্যানভাস।
     
Untitled Document

পুঁতিফুল
Total Visitor: 709332
সাপলুডু মূলপাতা | মতামত Contact : shapludu@gmail.com
Copyright © Life Bangladesh Developed and Maintained By :