Untitled Document
কার্তিক সংখ্যা ১৪১৮
মূলপাতা শিরোনাম বটতলা পঞ্জিকা প্রদর্শনী
হেমন্তের কবিতা
- ডা.সুরাইয়া হেলেন


সেই হেমন্ত

মনে পড়ে,মনে পড়ে কি সখা?
এমনি এক হেমন্তের সন্ধ্যায়
কত গল্প কবিতা গানে কেটেছে সময়
ধোঁয়াশা কুয়াশা জড়ানো ভালোবাসায় !

মনে কি পড়ে না,একটুও না
সেই নবান্নের উৎসবে আনন্দে
হারিয়ে যাওয়া হৃদয়ের ভেতর
কী এক নৃত্যপাগল ছন্দে !

ভুলে গ্যাছো সেই হেমন্ত
সেই কার্তিক,সেই অঘ্রাণ
ভুলেছো সেই গুবাক তরুর সারি
সেই আলোছায়া আবছা বাতায়ন !

হেমন্ত সন্ধ্যা

সেজেছি আমি হেমন্ত সন্ধ্যায়,
জড়িয়েছি আকাশ-নীল ফিনফিনে শাড়ি,
হীরে নয়,মোতি নয়,বেলী-জুঁই-চন্দন
সুরভী মেখে অপ্সরা নারী !

এসেছি তোমার কাছে প্রিয়তম,
জানি এখুনি ছিন্নভিন্ন হবে সাজ!
বসন ভুলুন্ঠিত,ফুলমালা নিষ্পেষিত,
তছনছ হবে যতো লাজ !

আবৃত দেহের সৌন্দর্যৃ সে তো
সবার চোখের আকর্ষণ,
নগ্ন তনুর শিল্প শুধু তুমি,
তুমিই করবে দর্শন !

তৃষ্ঞার্ত মুখ,চোখ,ওষ্ঠের
কারুকাজে,সঙ্গী দু’টি হাত !
সারা অঙ্গে কর্ষণ,দহন,বর্ষণ,
পুরো মন্থনে কাটবে হেমন্ত রাত !

নির্ঘুম নীরব হেমন্তের রাত

শুভ: ঘুমিয়েছিলো বিশ্ব চরাচর
সাথে তুমি ও তোমার শহর
আমার দু’চোখ জেগেছিলো নির্ঘুম
রাত্রির প্রতিটি প্রহর…
সুর: তুমি ছিলে নির্ঘুম
আমিও জেগেছি নীরবে
কথা বলেছি হৃদয়ে হৃদয়ে
মূক হয়ে যাওয়া ভালোবাসার উৎসবে!
অনুভবের দরোজায় করেছি করাঘাত
তুমি শোন নি কি?
সঙ্গী ছিলো হেমন্তের রাত !

শুনেছি অব্যক্ত সুখের যন্ত্রণার ধ্বনি
তবুও কেটেছে রাত স্বপ্নের জাল বুনি
এই ভালোবাসা বেদনার চিরন্তন সাথী
জানি আমি,জানো তুমি,
তবুও জ্বেলেছি প্রেমের বাতি !
     
Untitled Document

তিন পাপড়ির ফুল
প্রদর্শনী

চাঁপাইনবাবগঞ্জ ফটো ক্লাব
Copyright © Life Bangladesh
সাপলুডু মূলপাতা | মতামত Contact : shapludu@gmail.com