Untitled Document
এ্যালবাম
শ্যামসুন্দর বৈষ্ণব
শেফালী ঘোষ

এ মাসের এ্যালবামঃ
বাংলাদেশের লোকসংগীতের একটি বিরাট অংশ চট্টগ্রামের আঞ্চলিক গান/চাটগাঁইয়া গান। যাদের জাদুময়ী সাবলীল কণ্ঠে দেশ-বিদেশে চাটগাঁইয়া গানকে সব বয়সী মানুষের কাছে সমান জনপ্রিয় করে তুলেছেন তাদের মধ্যে শ্যামসুন্দর বৈষ্ণব ও শেফালী ঘোষ অন্যতম।

শ্যামসুন্দর বৈষ্ণব (১৯২৭-২০০০)
বাংলা আঞ্চলিক গানের কিংবদন্তি শিল্পী

১৯২৭ সালে চট্টগ্রামের ফতেয়াবাদ গ্রামে জন্ম শ্যামসুন্দর বৈষ্ণবের। চট্টগ্রামের বিশুদ্ধ আঞ্চলিক গানের একজন অন্যতম এ স্রষ্টা তার নিজস্ব গায়ন শৈলীর পরিবেশনায় দেশের প্রায় সব অঞ্চলের আবালবৃদ্ধবনিতাকে মোহনীয় সুরের আকর্ষণে মন্ত্রমুগ্ধ করেছেন দেশ-বিদেশে। স্বমেধায় উদ্ভাসিত একজন শিল্পী শ্যামসুন্দর বৈষ্ণব একাধারে গায়ক, অভিনেতা, গীতিকার, সুরকার ও সঙ্গীত পরিচালক। সুরের জাদুকর ও চলচ্চিত্র নির্মাতা সত্য সাহার সঙ্গে আবাল্য সখ্যে অনুপ্রাণিত হয়ে যোগ দেন চলচ্চিত্র নির্মাণে। তার নির্মিত চলচ্চিত্র ‘জন্তর মন্তর’ আর অভিনয় করেছেন ‘অশিক্ষিত’ নামক বাংলা চলচ্চিত্রে। চট্টগ্রামের আঞ্চলিক গানের ইতিহাস ও বিকাশের উৎস অনুসন্ধানে শিল্পী হিসেবে তার অবদান অদ্বিতীয়। ১৯৭১ সালে মহান মুক্তিযুদ্ধে মুক্তিকামী মানুষকে অপরিসীম প্রেরণা জুগিয়েছে তার গান। তিনি ছিলেন জীবনমুখী ও খেটে খাওয়া মানুষের জীবন্ত সংগীত স্রষ্টা। মিয়ানমার, জাপান, আমেরিকা, লন্ডন, দুবাই, মালয়েশিয়া, কাতার, ওমান, আবুধাবিসহ বিভিন্ন দেশে চট্টগ্রামের আঞ্চলিক গান গেয়ে প্রবাসীদের মন ভরিয়েছেন। ২০০৮ সালে মহান এ শিল্পী একুশে পদকে (মরণোত্তর) ভূষিত হন।

শেফালী ঘোষ (১৯৪১-২০০৬)
বাংলা আঞ্চলিক গানের কিংবদন্তি শিল্পী

জন্ম বোয়ালখালীর কানুনগোপাড়ায় ১৯৪১ সালে। পাঁচ ভাই ও পাঁচ বোনের মধ্যে তিনি ছিলেন দ্বিতীয়। গান শেখার জন্য ১৯ বছর বয়সে চট্টগ্রাম আসেন। সেখানে পরিচয় হয় সংগীতানুরাগী ননী গোপাল দত্তর সাথে। পরিচয়ের সূত্র ধরে দুজনে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। তাদের এক ছেলে। চট্টগ্রামের আরেক আঞ্চলিক গানের জনপ্রিয় শিল্পী শ্যাম সুন্দর বৈষ্ণব-এর সাথে গানের জুটি গড়ে তোলেন। তাদের দুজনের গান তখন গ্রাম-বাংলার মানুষের মুখে মুখে শোনা যেত। জনপ্রিয় এই শিল্পী মহান মুক্তিযুদ্ধের সময় গান গেয়ে মুক্তিযোদ্ধাদের অনুপ্রাণিত করেন। স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের শিল্পী শেফালী ঘোষের দুই হাজারেরও বেশী গান রয়েছে। রয়েছে ১৫০টির মত গানের অ্যালবাম। এছাড়া তিনি ২০টি চলচ্চিত্রে প্লেব্যাক করেছেন। তার জনপ্রিয় গানের মধ্যে রয়েছে ‘ওরে সাম্পানওয়ালা তুই আমারে করলি দিওয়ানা’, ‘নাতির বড়ই খা’, ‘ও বানু বানুরে’ ইত্যাদি। তিনি যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, জাপান, মধ্যপ্রাচ্যসহ বিশ্বের ২০টিরও বেশি দেশে সংগীত পরিবেশন করেছেন। আঞ্চলিক গানের স্বরলিপি নিয়ে একটি বই বের করার কাজও শুরু করেছিলেন।

সাপলুডুর অন্যান্য সংখ্যায় প্রকাশিত গানের সংগ্রহ
Untitled Document